9.9 C
New York

স্বীকৃতির জন্য সংগ্রাম করবেন বিশ্বের বিশিষ্টজনেরা

Published:

‘১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জেনোসাইড ছিল একটি ধ্বংসাত্মক হত্যাকাণ্ড। আমরা সংগ্রাম করে যাবো এর আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ের জন্য।’ জাতীয় গণহত্যা স্মরণ দিবস উপলক্ষে ২৪ মার্চ বিকেলে আন্তর্জাতিক ওয়েবিনারে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদ বব ল্যান্সিয়া এ কথা বলেন। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সংগঠন ‘মুক্ত আসর’ ও ‘বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ওয়েবিনারের বিষয় ছিল ‘আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশের জেনেসাইডকে স্বীকৃতি দেওয়া’।

প্রধান বক্তা ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও আইসিটি মহাপরিচালক সৈয়দ মুনতাসির মামুন। আলোচনা করেন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদ বব ল্যান্সিয়া, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ও বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড জাতীয় কমিটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এ কে এম শাহনাওয়াজ, ফ্রান্সের আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনালের প্রেসিডেন্ট স্টিফেন মিচট, সুইজারল্যান্ডের ইন্টারফেইথ ইন্টারন্যাশনাল সেক্রেটারি বিরো দিওয়ারা, যুক্তরাজ্যের ইউরোপ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের পরিচালক ক্রিস্টোফার ব্ল্যাকবার্ন এবং মুক্ত আসরের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আবু সাঈদ।

সুইজারল্যান্ডের ইন্টারফেইথ ইন্টারন্যাশনাল সেক্রেটারি বিরো দিওয়ারা বলেন, ‘বাংলাদেশের জেনোসাইডের ২৫ মার্চ দিনটি পৃথিবীর ইতিহাসে কালো অধ্যায়। জেনেভা মানবাধিকারের কেন্দ্রে আমরা ২০২৪ সালের সেপ্টেম্বরের সম্মেলনে একটি প্রস্তাব উত্থাপন করতে পারি। রুয়ান্ডায় জেনোসাইডটি যেভাবে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে, বাংলাদেশের জেনোসাইডকে স্বীকৃতি দেওয়া খুবই জরুরি। আমরা কখনোই একাত্তরের নির্যাতিতদের ভুলতে পারি না।’

আরও পড়ুন

ফ্রান্সের আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনালের প্রেসিডেন্ট স্টিফেন মিচট, ‘আমরা ওয়েবিনারে এসেছি কারণ বাংলাদেশ জেনোসাইডকে এখনো আন্তর্জাতিক স্বীকৃত দেওয়া হয়নি। আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের জেনোসাইডের স্বীকৃতির জন্য প্রচারের কাজ করবো।’

বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড জাতীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ বলেন, ‘বিশ্বের বড় গণহত্যাগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের গণহত্যা অন্যতম। ৫৩ বছরেও আন্তর্জাতিকভাবে এর স্বীকৃতি মেলেনি। আমরা এ ওয়েবিনারের মাধ্যমে বাংলাদেশের গণহত্যা সম্পর্কে বৈশ্বিকভাবে তুলে ধরবো। সেই সঙ্গে জেনোসাইড ৭১ নামে একটি ওয়েবসাইট চালু করতে যাচ্ছি। সেখানে বিভিন্ন ভাষায় বাংলাদেশের গণহত্যা সম্পর্কে নানা তথ্য, সাক্ষাৎকার, প্রতিবেদন, ছবি, ভিডিও প্রকাশ করা হবে।’

ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন যুক্তরাজ্যের লেখক প্রিয়জিৎ দেবসরকার। ওয়েবিনারটির বাংলাদেশ ইতিহাস অলিম্পিয়াড ও মুক্ত আসর ফেসবুক পেজ থেকে প্রচারিত হয়। ওয়েবিনারের সঙ্গে যুক্ত ছিল স্বপ্ন’৭১ প্রকাশন, বইবিষয়ক পত্রিকা বইচারিতা, জার্মানের বাংলা নিউজ পোর্টাল শুদ্ধস্বর ডটকম, ভারতের উদার আকাশ, যুক্তরাজ্যের এনএল২৪।

এসইউ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img