11.5 C
New York

সম্পর্ক এগিয়ে নিতে চায় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র

Published:

নির্বাচনের পর যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে প্রথম উচ্চপর্যায়ের সফরে দ্বিপক্ষীয় বিষয়ের পাশাপাশি আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নানা বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন নিয়ে মতপার্থক্য সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়ার বিষয়ে সরকারের মনোযোগ রয়েছে। সুশাসন, মানবাধিকার এবং শ্রম অধিকারের মতো বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুক্ততা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা আছে। এর পাশাপাশি প্রতিরক্ষাবিষয়ক চুক্তি—জিসোমিয়া ও আকসা সইয়ের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক জোরদারের বিষয়টি রয়েছে।

মিয়ানমার পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এক কূটনীতিক জানান, মিয়ানমারের চলমান সংঘাতের মাত্রা বেড়েছে। বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এ নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। বিশেষ করে মিয়ানমারের পরিস্থিতি বাংলাদেশে কতটা প্রভাব পড়েছে, বাংলাদেশ বিষয়টি কীভাবে দেখছে, সেটি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদল জানা-বোঝার চেষ্টা করতে পারে।

সাবেক পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হক গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, বিশ্ব রাজনীতি যে পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে, তাতে অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা সম্পর্ককে আলাদা করে দেখাটা জটিল হয়ে গেছে। ভূরাজনীতি ও ভূ–অর্থনীতি এক হয়ে গেছে। কাজেই একটিকে বাদ দিয়ে অন্যটি নিয়ে সম্পর্ক বেশি এগোবে না। বাংলাদেশের গুরুত্ব শুধু অর্থনীতির কারণে নয়, ভূরাজনৈতিক অবস্থানের কারণেও। ফলে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র দুই দেশের সম্পর্ক এগিয়ে নিতে মনোযোগ দিচ্ছে।

Related articles

Recent articles

spot_img