8.5 C
New York

শেষ বলের চমকে মোহামেডানের নাটকীয় জয়

Published:

শেষ ওভারে মোহামেডানের দরকার ছিল ৯ রানের। হাতে ছিল ১ উইকেট। স্ট্রাইকে কামরুল ইসলাম রাব্বি। দিনের শেষ ওভারের প্রথম বলে বাউন্সার ছুঁড়লেন হাসান মাহমুদ। ব্যাট ঘোরালেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। বল ব্যাটের ওপরের দিকের কানায় লেগে ফাইন লেগ দিয়ে চলে গেল সীমানার বাইরে।

এরপরের তিন বল ডট। এর মধ্যে দুটি ইয়র্কার লেন্থে পিচ পড়া আর এক বলে লং অনে ঠেলে সিঙ্গেল নেয়ার সুযোগ থাকলেও প্রান্ত বদলালেন না কামরুল ইসলাম রাব্বি। পঞ্চম বলে অফসাইডে তুলে মারলেন তিনি। লং অফ আর এক্সট্রা কভারের মাঝখান দিয়ে বল চলে গেল সীমানার ওপারে।

শেষ বলে ১ রান প্রয়োজন থাকা অবস্থায় অফস্টাম্পের বাইরে খাট লেন্থের ডেলিভারি, রাব্বি পয়েন্ট ও কভারের মাঝখান দিয়ে তুলে মারলেন। বল ফিল্ডারদের নাগালের বাইরে দিয়ে চলে গেল সীমানার ওপারে। এরই সঙ্গে প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে ১ উইকেটের অবিস্মরণীয় তুলে নিলো মোহামেডান।

আজ বুধবার বিকেএসপি ৪ নম্বর মাঠে মোহাডোনের টার্গেট ছিল ২৭২ রান। শুরুটা দেখে মনেই হয়নি তামিম ইকবালের প্রাইম ব্যাংককে হারাতে পারবে ইমরুল কায়েসের মোহামেডান।

১৫ রানে ৩ টপ অর্ডার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল (১), রনি তালুকদার (১২), অধিনায়ক ইমরুল কায়েস (০) ফিরে যান সাজঘরে। সেখান থেকে দুই তরুণ মাহিদুল ইসলাম অংকন আর আরিফুল ইসলাম শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে দেন। চতুর্থ উইকেটে অংকন আর আরিফুলের ১২১ রানের জুটি ভাঙ্গার পর আবারো ছন্দপতন। ১৩৬ রানে আরিফুল (৭০ বলে ৪৭) আউট হওয়ার পর আবারো মড়ক লাগে। ১৫৯ রানে খোয়া যায় ৬ উইকেট। অংকন ৯২ বলে ৭৮ রানে ফিরলেন সাজঘরে। আর সিনিয়র আরিফুল ৭ রানে ফিরে গেলেন।

আবার সংকটে পড়ে মোহামেডান। সেই বিপদে হাল ধরলেন অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং পেসার আবু হায়দার রনি। দু’জনই হাত খুলে খেলে মোহামেডানকে জয়ের পথে এগিয়ে দিলেন অনেকটা। রিয়াদ রোজা রেখেও ১২৭.২৭ স্ট্রাইকরেটে ৩৩ বলে ২ ছক্কা আর ৩ বাউন্ডারিতে ৪২ এবং আবু হায়দার রনি ৪ ছক্কা ও ৩ বাউন্ডারিতে ৩৬ বলে ১৫০.০০ স্ট্রাইকরেটে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে আউট হন।

এরপরও হারতে বসেছিল মোহামেডান। শেষ ১৮ বলে ২৮ রান দরকার দরকার থাকা অবস্থায় পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি ৯ নম্বরে একাই সব কিছু করে দেন। নাসুম শূন্য রানে আউট হওয়ার পর ওই ২৮ রানের সবগুলোই করেন রাব্বি।

জাতীয় দলের বাইরে থাকা রাব্বি ২০০.০০ স্ট্রাইকরেটে ২ ছক্কা ও শেষ ওভারে ৩ বউন্ডারিতে ২৮ রানের হার না মানা ইনিংস খেললে, শেষ বলে ডিএল মেথডে ১ উইকেটের নাটকী জয় পায় মোহামেডান।

এর আগে বাঁ-হাতি ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমনের অনবদ্য শতক আর অধিনায়ক তামিম ইকবালের হাফ সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ২৭৯ রানের বড়সড় পুঁজি গড়েছিলো প্রাইম ব্যাংক। ইমন ১১৩ বলে সমান ৬টি করে ছক্কা ও বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ১১০ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন। তামিমের ব্যাট থেকে আসে ৮৩ বলে ৬৫ রান।

কিন্তু পারভেজ ইমনের তৃতীয় শতকটি ভেস্তে যায়। মাঝখানে বৃষ্টি চলে আসলে ডিএল মেথডে মোহামেডানকে ৪৭ ওভারে ২৭২ রানের টার্গেট বেঁধে দেয়া হয়।

সমান ৬ ম্যাচে মোহামেডানের পঞ্চম জয়ের বিপরিতে প্রাইম ব্যাংকের এটা দ্বিতীয় পরাজয়।

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img