13.4 C
New York

শিশুশ্রম জরিপে শিশু গৃহকর্মীদেরও গুনতে হবে

Published:

সম্প্রতি (১৫ মার্চ ২০২৪) জাতীয় শিশুশ্রম জরিপ-২০২২–এর ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। জরিপের ফলাফল অনুযায়ী দেশে রোজগার করে খেতে হয় এমন শিশুর সংখ্যা ৬,৩৮১,২৩৬। এই সংখ্যা পৃথিবীর অনেক দেশের মোট জনসংখ্যার চেয়ে বেশি।

এই হিসাবের মধ্যে কেবল ৫ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিশুদের ধরা হয়েছে। এখানে মূলত আনুষ্ঠানিক খাতগুলোকে বিবেচনায় আনা হয়েছে। জাতিসংঘের নানান দলিলে বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের ১১.৩ শতাংশ শিশুকে (৫-১৭ বছর বয়সী) কাজ করে খেতে হয়। এর মধ্যে  শিশুশ্রম, ঝুঁকিপূর্ণ কাজ বা উভয়ই আছে।

প্রকাশিত জরিপে রোজগার করে খেতে হয় বা সংসার চালাতে এমন শিশুদের তিনটি ভাগে ভাগ করা আছে—ক. শ্রমজীবী শিশু; খ. শিশুশ্রমে নিয়োজিত শিশু এবং গ. ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রমে নিয়োজিত শিশু

শ্রমজীবী শিশু আর শিশুশ্রমে নিয়োজিত শিশুর মধ্যে ফারাক নিয়ে অনেকের মনে ধাঁধা  থাকতে পারে। গৃহীত নানা দলিলে বলা হয়েছে, ‘শিশুশ্রম’ হচ্ছে এমন সব কাজ, যা শিশুদের তাদের শৈশব থেকে বঞ্চিত করে এবং তাদের সম্ভাবনা বা বিকাশের পথ রুদ্ধ করে, মর্যাদাহানি করে এবং শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য ক্ষতিকর।

বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ন্যূনতম বয়সের নিচে কাজ এবং বিপজ্জনক পরিবেশে শিশুকে কাজ করতে বাধ্য করা হলে সেগুলোও শিশুশ্রম হিসেবে গণ্য করা হয়। আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা বিষয়টিকে আরও খোলাসা করতে গিয়ে বলেছে, ‘যেসব কাজ শিশুদের মানসিক শারীরিক, সামাজিক বা নৈতিকভাবে বিপজ্জনক এবং ক্ষতিকারক এবং/অথবা তাদের  পড়ালেখা থেকে বঞ্চিত করে স্কুলে যাওয়ার সুযোগ দেয় না; স্কুল ছেড়ে বাধ্য করে, সেগুলোই শিশুশ্রম।’

Related articles

Recent articles

spot_img