13.4 C
New York

মেয়াদ শেষে কাজ মাত্র ৩০ ভাগ

Published:

৬০ মিটার সেতুটির জন্য ২০২১ সালের জুন মাসের দিকে দরপত্র আহ্বান করা হয়। সল্যুশন ডিজাইন নামে ঢাকার একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজটি পায়। কার্যাদেশ দেওয়া হয় ২০২১ সালে ২৭ নভেম্বর। কার্যাদেশ অনুযায়ী, কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০২২ সালের ২৮ নভেম্বর।

সাতক্ষীরা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান বলেন, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সল্যুশন ডিজাইনকে ১৮ মার্চ সবশেষ চিঠি দিয়ে বলা হয়েছে, আগামী জুনের মধ্যে সেতুর নির্মাণকাজ শেষ করতে। কাজটি অনেক দিন বন্ধ থাকার পর গত দুই সপ্তাহ আগে আবার শুরু হয়েছে।

সরেজমিন গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার রইচপুরে দেখা যায়, সেতুর চারটি পিলার ছাড়া দৃশ্যত আর কিছুই হয়নি। কয়েকজন শ্রমিক কাজ করছেন। পাশেই চলাচলের জন্য কাঠের পাটাতন দিয়ে একটি সাঁকো নির্মাণ করা হয়েছে। সেই সেতু দিয়ে বিভিন্ন এলাকার মানুষ যাতায়াত করছেন ঝুঁকি নিয়ে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সাতক্ষীরা-ঘোনা সড়কের রইচপুর সেতু দিয়ে সাতক্ষীরা পৌরসভার একাংশ, শিবপুর, ঘোনা, আলীপুর ও আগড়দাঁড়ি ইউনিয়নের শতাধিক গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে আসছিল। জরাজীর্ণ হয়ে পড়ায় পুরোনো সেতুটি ভেঙে ২০২২ সালের ২ জানুয়ারি শুরু করা হয় নতুন সেতু নির্মাণের কাজ। উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনের তৎকালীন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ। কিন্তু তারপর দুই বছর তিন মাস পেরিয়ে গেলেও সেতুর চার ভাগের এক ভাগ কাজ মাত্র শেষ হয়েছে।

Related articles

Recent articles

spot_img