5.1 C
New York

‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ব্যাটে বড় ছক্কার যন্তর–মন্তর

Published:

টাকা দিয়ে নাকি বাঘের চোখও কেনা যায়। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরাও টাকা দিয়ে কম কিছু কিনছেন না। দামি গাড়ি, বড় বাড়ি তাঁদের অনেকের সামর্থ্যের তুলনায় বাড়াবাড়ি কিছু নয়। কিন্তু বাড়াবাড়ি রকমের দুঃখ হলো যখন জানা গেল, বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা টাকা খরচ করেও ভালো একটা ব্যাটই কিনতে পারেন না!

ক্রিকেটাররা ব্যাট পান স্পনসরদের মাধ্যমে অথবা বিদেশ থেকে অর্ডার দিয়ে বানিয়ে এনে। কিন্তু বেশির ভাগ ব্যাটই নাকি গুনে-মানে সেরা হয় না। বিদেশ থেকে চাহিদামাফিক ব্যাট বানিয়ে আনতে গেলেও প্রত্যাশাপ্রাপ্তির মধ্যে হাহাকার থেকে যায়। তেজস্বী ব্যাটিংয়ে বিশাল ছক্কায় বল মাঠছাড়া করার ব্যাট হয় না সেগুলো। এসব ব্যাট দিয়ে মারা ছক্কা কোনোরকমে বাউন্ডারি রশি পার করা ছক্কা। ইংরেজ, অজি বা ভারতীয় ছক্কার চেয়ে বাংলাদেশের ছক্কা তাই ছোট। রোহিত-কোহলিরা যে শট খেলেই নিশ্চিন্ত হয়ে যান, বল আর মাঠের ধারেকাছে থাকছে না, সে রকম শট খেলে তামিম-মুশফিকরা টেনশনে চেয়ে থাকেন—বল মাঠ পার হবে তো! আমরা বলি গায়ে জোর কম, টেকনিকে সমস্যা। কিন্তু আসলে নাকি ব্যাটের পার্থক্যও অপুষ্টিতে ভোগা ছক্কার একটা কারণ!

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যাট নিয়ে এ দুঃখের কথা জানা গেল কাল রাতে, ব্যাট নিয়েই হওয়া এযাবৎকালে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আয়োজনে। বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক মানের ব্যাট প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান, যাদের বানানো ব্যাট এরই মধ্যে আইসিসির স্বীকৃতিও পেয়েছে বলে খবর, ঢাকার ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে সেই ‘এমকেএস স্পোর্টসে’র আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে কাল। পত্রপত্রিকায় আগে থেকেই লেখালেখি হওয়ায় ‘এমকেএস স্পোর্টস’ এরই মধ্যে অনেকের কাছে পরিচিতি পেয়ে গেছে। জাতীয় দলের দুই ক্রিকেটার ইমরুল কায়েস ও মেহেদী হাসান মিরাজ সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানটির মালিকানায়। সঙ্গে আছেন দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের কাছে ‘ব্যাট-ডক্টর’ নামে পরিচিত এইচ এম আফতাব শাহীন ও ব্যবসায়ী আবুল কালাম আজাদ।

Related articles

Recent articles

spot_img