-0.6 C
New York

ব্যবসা–বাণিজ্যে গতি কম, কোম্পানি নিবন্ধনে ভাটা

Published:

একই কথা বলেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি জসিম উদ্দিন। তিনি মনে করেন, গত দু-তিন বছর ব্যবসা-বাণিজ্যের গতি কমে গেছে, তাই নতুন বিনিয়োগে আগ্রহ কম ব্যবসায়ীদের। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, কোভিড, ইউক্রেন যুদ্ধ, ডলার–সংকটসহ নানা কারণে অর্থনীতি চাপে আছে। এ ছাড়া কোম্পানি নিবন্ধন নিয়ে বসে থাকার উপায় নেই। কর কর্মকর্তারাও দেখেন, কারা নিবন্ধন নিয়েছেন, তাঁরা রিটার্ন জমা দেন কি না, এসব কারণে নিবন্ধনে কিছুটা ভাটা পড়েছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরজেএসসির এক কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, দেশের অর্থনীতির এই খারাপ সময়ে কেউ নতুন করে বিনিয়োগ করতে চান না। তাই কোম্পানি নিবন্ধন কমেছে। তিনি জানান, আগে প্রতি মাসে ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৩০০ কোম্পানি নিবন্ধনের আবেদন পড়ত। এখন তা ৭০০ থেকে ৮০০–তে নেমে এসেছে। আবার অনেকে কোম্পানি নিবন্ধন নিয়েও কার্যক্রম শুরু করছেন না।

আরজেএসসির সর্বশেষ হিসাবে, বর্তমানে দেশে প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি আছে ২ লাখ ৮ হাজার ৬৩৭টি। গত বছর জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) একটি দল তদন্ত করে দেখেছে, সব কোম্পানির টিআইএন ও রিটার্ন দেওয়া বাধ্যতামূলক হলেও মাত্র ৭৮ হাজার কোম্পানির টিআইএন আছে। মাত্র ২৮ হাজার কোম্পানি নিয়মিত রিটার্ন দেয়। অনেক কোম্পানি গঠিত হওয়ার পরে পরিচালনায় আসেনি। এসব কোম্পানি কাগুজে কোম্পানি হিসেবেই থেকে যাচ্ছে। এনবিআরের ওই তদন্ত দল দেখতে পায়, কারওয়ান বাজারের দুটি ঠিকানায় প্রধান কার্যালয় হিসেবে দেখিয়ে নিবন্ধন নিয়েছে ১ হাজার ৪০০ কোম্পানি। বাস্তবে ওই দুটি ঠিকানায় ওই সব কোম্পানির অস্তিত্ব নেই।

Related articles

Recent articles

spot_img