5.6 C
New York

ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের সম্ভাবনা কত দূর

Published:

পাশবিক শক্তি দিয়ে ফিলিস্তিনিদের ওপর শাসন অব্যাহত রাখার জন্য ইসরায়েলকে এসব বাস্তবতার হিসাব–নিকাশ করতে হবে শুধু মার্কিন প্রেসিডেন্ট বা কংগ্রেসের ওপর নির্ভর করে নয়।

ইসরায়েলের জন্য বাস্তবতা হচ্ছে ফিলিস্তিনি জনগণ, যারা ওই অঞ্চলের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক। সেখানে ৭০ লাখ ফিলিস্তিনি (পশ্চিম তীরে ৩০ লাখ, গাজায় ২০ লাখ এবং খোদ ইসরায়েলে ২০ লাখ) যেখানে ইসরায়েলে ৭০ লাখ ইহুদি ধর্মাবলম্বীরা রয়েছে। ফিলিস্তিনিদের মধ্যে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার বেশি (বার্ষিক প্রায় ২ শতাংশ বনাম ইহুদি জনসংখ্যা বৃদ্ধি ১.৫ শতাংশ) এই বৃদ্ধির হার বজায় থাকলে দুই দশকের মধ্যে ফিলিস্তিনিরা সংখ্যায় ইসরায়েলিদের ছাড়িয়ে যাবে।

এই বিশাল জনগোষ্ঠীকে ইসরায়েল কোথায় বিতাড়িত করবে? জর্ডান বা মিসর নয়। উপসাগরীয় আরব বা সৌদি আরব কখনোই এই বিশাল জনগোষ্ঠীর জন্য তাদের সীমান্ত খুলে দেবে না। ফিলিস্তিনিদের এ ভূখণ্ডের মধ্যে স্থান দিতে হবে এবং নাগরিক হিসেবে পূর্ণ সম্মান ও অধিকার দিতে হবে। এ অধিকারগুলো তাদের সার্বভৌম রাষ্ট্র হয়ে ওঠার পর হবে নাকি পূর্ণ নাগরিক হিসেবে ইসরায়েলের অভ্যন্তরে থেকে হবে, তা ইসরায়েলি নেতাদের সিদ্ধান্ত। ক্ষয়ক্ষতির যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে এখন থেকে তাদের এ বিবেচনা করতে হবে।

পূর্ণ সার্বভৌমত্বের সঙ্গে পুরো পশ্চিম তীর এবং গাজা নিয়ে গঠিত একটি ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র এমন একটি আদর্শ, যা প্রত্যেক ফিলিস্তিনি চায়। এর মধ্য দিয়ে এ অঞ্চলে আট দশক ধরে চলা মানবসৃষ্ট সংকটের অবসান ঘটতে পারে। মুসলিম বিশ্ব থেকে উদ্ভূত বেশির ভাগ অস্থিরতার এখন একটিই মূল কারণ, ফিলিস্তিনিদের তাদের মাতৃভূমি থেকে জোরপূর্বক দখল ও উচ্ছেদ। ১৯৪৮ সাল থেকে এ অঞ্চলে তিনটি যুদ্ধ হয়েছে এবং আরও একটি আসন্ন।

দুঃখজনক হলেও সত্য, আরব দেশগুলো বা পশ্চিমা শক্তিগুলোর মধ্যে এ সংকটের স্থায়ী সমাধান খোঁজার খুব একটা আগ্রহ নেই। যুক্তরাষ্ট্র দালাল হিসেবে কাজ করার চেষ্টা করে, কিন্তু তার উদ্দেশ্যগুলো সন্দেহজনক হয়ে ওঠে যখন তার কংগ্রেস থেকে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষার জন্য নির্লজ্জ সমর্থন পাশাপাশি উচ্চারিত হতে থাকে। এ দ্বিমুখী আচরণ এ প্রচেষ্টাকে মিথ্যা প্রমাণ করে।

ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের জন্য কি কোনো আশা আছে? এখন যে অন্ধকার ও বিষণ্ন সম্ভাবনা বিরাজ করছে, তাতে সংশয়ের কারণ রয়েছে। তবে এ লেখায় আগেই বলেছি, পরিবর্তনের হাওয়া আসতে বাধ্য। নতুন প্রজন্ম এ মানসিকতা পরিবর্তন করবে, যা দীর্ঘদিন ধরে এলাকার অর্ধেক মানুষকে দমন করার জন্য ইসরায়েলের আত্মঘাতী অভিপ্রায় পরিচালিত করেছে। এভাবে চিরকাল চলবে না।

জিয়াউদ্দিন চৌধুরী, সাবেক সরকারি কর্মকর্তা

Related articles

Recent articles

spot_img