10.6 C
New York

প্রোটিনিউরিয়া কী, কাদের হয়, কেন হয়, খাদ্যাভ্যাসের সঙ্গে কী সম্পর্ক

Published:

কিডনির রোগ প্রোনিউরিয়ার ঝুঁকি কমাবেন কীভাবে?

প্রোটিনিউরিয়া ও কিডনির যেকোনো রোগ প্রতিরোধে সুস্থ জীবনধারা গড়ে তোলার বিকল্প নেই।

সুষম খাদ্যাভ্যাস আবশ্যক। শর্করা, প্রোটিন, স্নেহজাতীয় খাবার যেমন চাই প্রয়োজনমাফিক, তেমনি চাই প্রচুর শাকসবজি ও ফলমূল। পর্যাপ্ত পানিও খেতে হবে রোজ।

শরীরটাকে সচল রাখুন। কায়িক শ্রম চাই-ই চাই। শরীরচর্চা বা খেলাধুলার মতো কাজে সময় দিন রোজ, যাতে শারীরিক শ্রম হয়।

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন। আপনার উচ্চতা অনুযায়ী কোনটি আপনার জন্য সঠিক ওজন, জেনে নিন। সেই সীমার মধ্যেই রাখুন নিজের ওজন। বাড়তি ওজন ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকিও বাড়ায়।

ধূমপান অবশ্যই বর্জন করুন। ধূমপানের ফলে কিডনির রক্তনালি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এমনকি নিজে ধূমপায়ী না হলেও অন্যের সিগারেটের ধোঁয়া আপনার কিডনিকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। তাই সবাইকেই ধূমপানে নিরুৎসাহিত করুন।

৪০ পেরোলে প্রতিবছরই অন্তত একবার কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানো প্রয়োজন।

আপনি শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ বোধ করলেও এসব পরীক্ষা করানো জরুরি।

আপনার ডায়াবেটিস কিংবা কিডনির রোগ আছে কি না, প্রস্রাবে প্রোটিন যাচ্ছে কি না, রক্তচাপ কেমন থাকছে—এ বিষয়গুলো জানা প্রয়োজন। মনে রাখবেন, এ ধরনের রোগ কিন্তু কোনো উপসর্গ ছাড়াই আপনার শরীরে বাসা বেঁধে থাকতে পারে বছরের পর বছর।

ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ কিংবা দীর্ঘমেয়াদি কিডনির রোগ থাকলে অবশ্যই একজন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকুন। এই রোগগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য চিকিৎসকের সব পরামর্শ মেনে চলুন।

Related articles

Recent articles

spot_img