5.1 C
New York

নিজ্জর হত্যার আগে মার্কিন গোয়েন্দারা কী জানতেন

Published:

অভিযোগপত্রের তথ্যানুসারে, ভারত সরকারের ওই কর্মকর্তার নির্দেশ অনুসারে কয়েক সপ্তাহ ধরে পান্নুনের গতিবিধির ওপর নজর রাখছিলেন নিখিল। তিনি কথাবার্তায় নিজেকে ‘জ্যেষ্ঠ মাঠ কর্মকর্তা’ হিসেবে বর্ণনা করছিলেন।

মার্কিন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা কীভাবে কথিত এ হত্যা চক্রান্ত উদ্‌ঘাটন করল, তার বিবরণ অভিযোগপত্রে রয়েছে। নিখিলের ‘ভাড়াটে খুনি’ ছিল তাদেরই ছদ্মবেশী এজেন্ট।

পান্নুনকে হত্যার ষড়যন্ত্রটি এগিয়ে যাচ্ছিল। এমনকি পান্নুনের পর আর কাকে কাকে হত্যা করা হবে, তার একটি দীর্ঘ তালিকার ইঙ্গিত পর্যন্ত দিয়েছিলেন নিখিল।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, গত জুন মাসে নিখিল এক ফোনকলে বলেছিলেন, আরও একাধিক কাজ (হত্যা) আছে। সম্ভাব্য এ কাজগুলোর মধ্যে আন্তসীমান্ত ‘অপারেশন’ অন্তর্ভুক্ত ছিল।

গত ১২ জুন নিখিল মার্কিন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার এজেন্টকে বলেছিলেন, কানাডায় একটি বড় লক্ষ্যবস্তু আছে। এর ছয় দিন পর গত ১৮ জুন কানাডায় নিজ্জর খুন হন।

কানাডার জাতীয় পুলিশ ও রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ এখনো নিজ্জর হত্যার তদন্ত করছে। মার্কিন অভিযোগপত্রের বিষয়ে তারা কোনো মন্তব্য করেনি।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযুক্ত চক্রান্তকারীরা নিজ্জর হত্যায় জড়িত ছিলেন, এমনটা অভিযোগ করেননি মার্কিন কৌঁসুলিরা। তবে তাঁদের ভাষ্য, নিজ্জর হত্যার পরপরই নিখিল ও তাঁর ভারতীয় নিয়োগকর্তা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছিলেন।

মার্কিন অভিযোগপত্রের তথ্যানুসারে, ভারতীয় সরকারি কর্মকর্তাকে নিখিল বলেছিলেন, নিজ্জর হত্যায় তাঁর অংশ নেওয়ার ইচ্ছা ছিল।

নিজ্জর হত্যার পরই যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার এজেন্টকে ফোন করেছিলেন নিখিল। তিনি এজেন্টকে বলেছিলেন, কানাডায় একটি বড় লক্ষ্যবস্তুর যে কথা কয়েক দিন আগে উল্লেখ করেছিলেন, তিনি নিজ্জর।

নিখিল বলছিলেন, ‘এই সেই লোক। আমি আপনাকে ভিডিও পাঠাচ্ছি। অন্য লোক এ কাজ (হত্যা) করেছে।’

মার্কিন আদালতের নথির ইঙ্গিত, নিজ্জর হত্যার ঘটনাটি নিখিল উৎসাহিত করেছিল বলে মনে হয়। কারণ, তিনি মার্কিন এজেন্টকে বলেছিলেন, পান্নুনকে দ্রুত শেষ করতে হবে। এরপর জুন মাস শেষ হওয়ার আগেই তাঁদের আরও তিনটি কাজ করতে হবে। তিনটি কাজই কানাডার।

Related articles

Recent articles

spot_img