6.6 C
New York

দুই বছর পরও চলছে রাশিয়া–ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব

Published:

ব্রিকসের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে

এদিকে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেতৃত্বাধীন জোট ব্রিকসের প্রতি অন্যান্য দেশের আগ্রহ বাড়ছে। গত বছর প্রায় ৪০টি দেশ এই জোটে যোগ দেওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত ২২টি দেশ আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন জানায়। শেষমেশ ছয়টি দেশকে ব্রিকসের সদস্যপদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সামগ্রিকভাবে পশ্চিমাদের নেতৃত্বাধীন বিশ্বায়ন প্রক্রিয়ার বিপরীতে ব্রিকসের জনপ্রিয়তা বাড়ছে, যার নেতৃত্বে আছে রাশিয়া ও চীন।

গত দুই বছরে সারা বিশ্বে ডিডলারাইজেশন ত্বরান্বিত হয়েছে। শুধু রাশিয়া বা পশ্চিমাবিরোধী দেশগুলো নয়, যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত অনেক দেশও ডলারের পরিবর্তে অন্যান্য মুদ্রায় বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বা মজুত রাখতে শুরু করেছে। অন্যান্য মুদ্রায় বাণিজ্যও বাড়ছে। ২০২৩ সালের তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই-অক্টোবর) শেষে বৈশ্বিক রিজার্ভ মুদ্রায় ডলারের হিস্যা কমে ৫৯ দশমিক ২ শতাংশে নেমে আসে, ২০০০ সালে যা ছিল ৭০ শতাংশ।

এদিকে চীনা মুদ্রা ইউয়ান ও রুশ মুদ্রা রুবলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বাড়ছে। সৌদি আরবের কাছ থেকে চীন নিজস্ব মুদ্রা ইউয়ানে তেল কেনার বন্দোবস্ত প্রায় করে ফেলেছে। বস্তুত রাশিয়ার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এবং বিশ্বব্যাপী মূল্যস্ফীতি রোধে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ যেভাবে আগ্রাসী হারে নীতি সুদহার বাড়ায়, এর জেরে ডলারের বিনিময় হার বৃদ্ধি পায়। এতে বাংলাদেশসহ অনেক দেশেই প্রবল ডলার-সংকট দেখা দেয়। অনেক দেশ বাধ্য হয়ে ডলারের পরিবর্তে অন্যান্য মুদ্রায় লেনদেন শুরু করে। ব্রিকসও ডলারের পরিবর্তে অভিন্ন মুদ্রা বা নিজেদের সদস্যদেশের মুদ্রায় লেনদেন করতে চায়।

Related articles

Recent articles

spot_img