5.6 C
New York

দারুল আরকাম ছিল ইসলামের প্রথম পর্বের প্রচারকক্ষ

Published:

আরকাম (রা.) ১১–১২ জনের পরই ইসলাম গ্রহণ করেন। মুসলিমদের অবস্থা সে সময় সংকটজনক। মক্কার অবিশ্বাসীরা চাচ্ছিল, শক্তি অর্জনের আগেই ইসলামের আন্দোলনটিকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে। আরকাম (রা.)–এর ইসলাম গ্রহণের পর তাঁর বাড়িটি মুসলিমদের পরামর্শ ও প্রশিক্ষণকেন্দ্রে পরিণত হয়। রাসুল (সা.) এখানে ইসলামে আসা নতুন মুসলমানদের সঙ্গে একত্র হয়ে বৈঠক করতেন। রাসুল (সা.) ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমে এখান থেকে ইসলামের দাওয়াত দিতেন।

উমর (রা.) ইসলাম গ্রহণের পর ঘর থেকে বেরিয়ে প্রকাশ্যে ইসলামের দাওয়াত ও শিক্ষাদান শুরু হয়। মুসলমানরা আরকামের বাসা থেকে বের হয়ে মসজিদে হারামে বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে পড়েন। আবু বকর (রা.) কাবা প্রাঙ্গণে উপস্থিত কুরাইশদের সম্বোধন করে ইসলামের দাওয়াত তুলে ধরতেই আবু বকরের ওপর তারা হামলা করেছিল। এভাবে মক্কায় প্রকাশ্যে ইসলামের দাওয়াত দেওয়ার সূচনা।

নবুয়তের ১৩তম বছরে মক্কার অন্য মুসলমানদের সঙ্গে আল-আরকাম (রা.) মদিনায় হিজরত করেন। এর পর মদিনায় স্থায়ীভাবে থাকার সময় মক্কার ঐতিহাসিক এই বাড়িটি সন্তানদের জন্য ওয়াকফ করে যান।

আল-আরকাম (রা.) বদর যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। এ যুদ্ধের জন্য রাসুল (সা.) তাঁকে ‘আল-মারজুবান’ নামের একটি তলোয়ার দিয়েছিলেন। সততা ছিল আরকাম (রা.)–এর চরিত্রের বিশেষ বৈশিষ্ট্য। রাতের ইবাদতের প্রতি ছিল তাঁর প্রবল আকর্ষণ।

৮৩ বছর বয়সে তিনি মদিনায় ইন্তেকাল করেন। তাঁর অসিয়ত অনুযায়ী সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস (রা.) তাঁর জানাজা পড়ান। মদিনার জান্নাতুল বাকি কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।

Related articles

Recent articles

spot_img