9.1 C
New York

ঢাকায় ফিলিস্তিনকে হারানো সম্ভব, বিশ্বাস করেন তপু

Published:

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডের তৃতীয় ম্যাচে ৫-০ গোলে হারের পর বাংলাদেশের এখন ঘরের ম্যাচে ফিলিস্তিনকে মোকাবিলার পালা। ২৬ মার্চ বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় দুই দলের ফিরতি ম্যাচ।

কুয়েতে বড় ব্যবধানে হারের ঘায়ে কতটা প্রলেপ দিতে পারবে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা, এখন সেটাই দেখার বিষয়। তবে শনিবার বিকেলে অনুশীলনের পর বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার তপু বর্মন ফিলিস্তিনকে হারিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যের কথাই বললেন।

এমন একটা বিপর্যয়ের পর কামব্যাক করা আদৌ সম্ভব? জবাবে তপু বর্মন বলেন, ‘কামব্যাক করা অবশ্যই সম্ভব। কামব্যাক বলতে ৫-০ গোলে ওদের সাথে আবার জিততে হবে তার বাধ্যবাধকতা নেই। আমরা যদি ওদের ১-০ গোলে হারাই, দ্যাট ইজ ফাইন। অবশ্যই আমাদের ওই টার্গেটটা আছে। আর আমি মনে করি, ওখানে (কুয়েতে) যে রেজাল্ট হয়েছে, তা আমাদের জন্য হতাশাজনক। আমরা খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ কেউ এমন ভাবিনি। আমাদের দেশের মানুষরাও এটা ভাবে না। অবশ্যই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে চাই ২৬ তারিখে।’

৪০ মিনিট পর্যন্ত সব ঠিক ছিল। তার পর কী হলো? আপনাদের মনোযোগে কি কোনো ঘাটতি ছিল? তপু বর্মন বলেন, ‘আমি মনে করি মনোযোগে কোনো ঘাটতি ছিল না। আমাদের তেমন কোনো সমস্যাও ছিল না। টিম ডিফেন্ডিংটা আমাদের একটু নড়বড়ে ছিল। যে কারণে, ৪২ মিনিটের পরে গিয়ে আমরা গোল খেয়ে বসি। সেটা আমাদের জন্য মাইনাস পয়েন্ট ছিল। আমরা সমানতালেই খেলছিলাম। আমরাও সুযোগ তৈরি করেছিলাম। হঠাৎ করে গোল হজমের পর আমাদের মনোবল একটু ভেঙে গিয়েছিল।’

টানা দুই সপ্তাহ সৌদিতে অনুশীলন করার পরও মনোবল কমে যাওয়ার কারণ কি? তাহলে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করে লাভটা হলো কী? ‘আসলে আমাদের স্ট্যামিনায় তো কোনো ঘাটতি হয়নি। আমি বলতে চাই-যদি মনসংযোগ একটু ভালো থাকতো, তাহলে ওভারকাম করতে পারতাম’-বলেন তপু বর্মন।

রক্ষণের চারজনের তিনজনই আপনারা বসুন্ধরা কিংসে দীর্ঘদিন ধরে খেলে আসছেন। কী হয়েছিল রক্ষণে? এমন এলোমেলো হয়ে গেলো কেন? তপুর জবাব, ‘ডিফেন্ডাররা তো ডিফেন্ডিং করবেন, সেটাই স্বাভাবিক। আসলে আমাদের যে টিম ডিফেন্ডিং ছিল, সেটা যদি সবাই মিলে ভালোভাবে ম্যানেজ করতে পারতাম তাহলে খুবই ভালো হতো। ফিলিস্তিনের মতো দলের বিপক্ষে ফোর ভার্সেস সিক্স খুবই কঠিন। আপনারা দেখেছেন তারা কিভাবে আমাদের ওপর চড়ে বসেছিল। আমার মনে হয়, যদি টিম ডিফেন্ডিংটা ভালো করতে পারতাম তাহলে ম্যাচ হারলেও এত গোল খেতাম না।’

আরআই/এমএমআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img