13.2 C
New York

চুয়াডাঙ্গা কামিল মাদরাসার দুই শিক্ষক বরখাস্ত

Published:

শৃঙ্খলাভঙ্গ, নারী কেলেঙ্কারি ও সভাপতির সই জাল করার অপরাধে চুয়াডাঙ্গা কামিল মাদরাসার দুই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

সহকারী শিক্ষক (কৃষি শিক্ষা) ওয়াহিদ মোহা. রাশেদীন আমিনের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গ, নারী কেলেঙ্কারি ও সভাপতির সই জাল করা এবং সহকারী অধ্যাপক মো. রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মাদরাসা পরিচালনা কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জিন্নাত আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) এ-সংক্রান্ত পত্র ওই দুই শিক্ষক গ্রহণ করেছেন।

সাময়িক বরখাস্তের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২৩ সালের ১০ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টার দিকে সহকারী শিক্ষক ওয়াহিদ মোহা. রাশেদীন আমিন এবং সহকারী অধ্যাপক রুহুল আমিন মাদরাসার অধ্যক্ষের কক্ষে এসে অসদাচরণ ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় মাদরাসার সহকারী অধ্যাপক (রাষ্ট্রবিজ্ঞান) আবুল হাশেম ও প্রভাষক (গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান) মাসুদুর রহমান প্রতিবাদ করলে অভিযুক্তরা তাদের শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে রক্তাক্ত করেন এবং প্রাণনাশের হুমকি দেন।

এতে আরও উল্লেখ করা হয়, শিক্ষক ওয়াহিদ মোহা. রাশেদীন আমিনের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারি ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতির সই জাল করে উচ্চ বেতনের আবেদন করার বিষয়টি প্রমাণিত। এসব বিষয়ে অভিযুক্ত দুই শিক্ষককে দুদফা কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হলেও তারা সন্তোষজনক জবাব দিতে ব্যর্থ হন। এ কারণে তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে শিক্ষক ওয়াহিদ মোহা. রাশেদীন আমিন রাজন বলেন, ‘বরখাস্তের চিঠি পেয়েছি। কিন্তু এটা বহিষ্কারের মতো ঘটনা নয়। মন্ত্রণালয়ে বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। আর মারামারি তো তারাও করেছে। আমি একা কেন শাস্তি পাবো?’

হুসাইন মালিক/এসআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img