8.3 C
New York

গোল হজমের খবরে আরো অসুস্থ বোধ করেছিলেন মিতুল মারমা

Published:

ফিলিস্তিনের বিপক্ষে ম্যাচে ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটে গোল খেয়ে ম্যাচ হারের পর বাংলাদেশ দল নিয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে গোলরক্ষক নিয়ে। ৮৩ মিনিট পর্যন্ত মাঠে ছিলেন মিতুল মারমা। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে মাঠেই শুয়ে পড়েছিলেন ঠিকঠাক মতো গোলবার সামলানো মিতুল।

তার বদলি হিসেবে কোচ হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরা মাঠে নামান মেহেদী হাসান শ্রাবণকে। আনিসুর রহমান জিকোকে না নামিয়ে কোচ কেন শ্রাবণকে নামালেন তা নিয়ে সমালোচনা চলছে। যদিও গোলটির জন্য শ্রাবণের কোন ভুল দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা। তারপরও বড় প্রশ্ন জিকোকে কেন নামানো হলো না।

মাঠে লুটিয়ে পড়ার পর মিতুলকে টিম ডাক্তার কিছু সময় চিকিৎসা করেছেন। পরে নিয়ে যাওয়া হয় এভারকেয়ার হাসপাতালে। মিতুলের কি হয়েছিল ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে তার সঠিক উত্তর দিতে পারেননি কোচ ক্যাবরেরা। কোচ বলেছিলেন, এখনো জানি না ওর কি হয়েছে।

বুধবার মিতুল মারমা জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘রক্তের সুগার কমে গিয়েছিল। পা কাঁপছিল এবং মাথা ঘুরছিলো। কিছুক্ষণ এমন হওয়ার পর শুয়ে পড়ি। আসলে অনেক গরম ছিল। প্রচুর ঘাম বের হয়েছিল শরীর থেকে। তাই হয়তো অমন হয়েছিল।’

প্রাথমিক সেবার পর মিতুলকে নিয়ে অ্যাম্বুলেন্স যখন বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনা ত্যাগ করে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে তখনো ম্যাচ চলছিল গোলশূন্যভাবে। গোলের খবর কখন পেয়েছিলেন? ‘প্রথম দিকে একটু অচেতনই ছিলাম। পরে আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হতে থাকি। তারপরও আমাকে নেওয়া হয়েছিল হাসপাতালে। সঙ্গে আমাদের ডিম ডাক্তার ছিলেন। পথেই আমি তাকে বারবার বলছিলাম ম্যাচের কি অবস্থা তা দেখতে। হাসপাতালের কাছাকাছি যাওয়ার পর ডাক্তার জানালেন গোল খেয়েছি’- বলছিলেন মিতুল মারমা।

গোল হজমের খবর জানার পর কেমন লাগছিল আপনার? মিতুল মারমা বলেন, ‘বিশ্বাস ছিল এ ম্যাচ হারবো না। যখন জানলাম গোল খেয়ে গেছি, তখন আমি আবার যেন অসুস্থ বোধ করতে লাগলাম। আমরা পয়েন্ট পাওয়ার খুব কাছাকাছি গিয়েও পারলাম না। দুর্ভাগ্য।’

মদকাণ্ডে জিকো নিষিদ্ধ হওয়ার পর বাংলাদেশ দলের প্রধান গোলরক্ষকের ভূমিকা পালন করে আসছিলেন মিতুল। এমনকি নিষেধাজ্ঞামুক্ত হয়ে জিকো ফেরার পরও। কুয়েতের মাঠে মিতুলকে খেলিয়েছেন কোচ। ভালো কয়েকটি সেভ ছিল। ঢাকায়ও ভালো গোলকিপিং করেছেন যতক্ষণ মাঠে ছিলেন। পুরো ম্যাচে একটি ভুল করেছিলেন। তাতে বিপদ হতে গিয়েও হয়নি।

মঙ্গলবার ঘন্টাখানেক হাসপাতালে থেকে টিম হোটেলে রাত কাটিয়ে বুধবার চলে গেছেন ক্লাব। ‘আমার এখন কোনো সমস্যা নেই। খুব ভালো বোধ করছি। ২৯ মার্চ লিগ শুরুর প্রথম দিন ম্যাচ আছে। তার প্রস্তুতি নিতে হবে’- বলছিলেন মিতুল মারমা।

আরআই/আইএইচএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img