24.1 C
New York

কোনো কোনো দিন ৫ বেলাও খেয়েছি!

Published:

ওজন কমানোর এ প্রক্রিয়া শুরুর পর নাঈম শুরুতে আত্মীয়স্বজনের বাসায় যাওয়া ও তাঁদের সঙ্গে দেখা বন্ধ করে দেন। বিনোদন অঙ্গনের অনেক অনুষ্ঠানে যাওয়া হয়নি তাঁর।

নাঈম বলেন, ‘এখন আমাকে হঠাৎ মোটা হয়ে যেতে দেখলে হুট করেই নানান কথা বলবে। কারণ, তারা তো আমার সাধনার বিষয়টা জানেন না। সাধনা করতে গেলে কষ্ট আসবেই। কষ্টকে বড় করে দেখার কিছু নাই, সাধনাকে বড় করে দেখা উচিত। বন্ধুবান্ধব যারা খুবই ঘনিষ্ঠ, শুধু তাদের সঙ্গে দেখা হতো। তারা জানত, আমি একটা কাজের জন্য ওজন বাড়াচ্ছি।’

বেশ কয়েক বছর ধরে নিয়মিত জিম করছেন নাঈম। ফিটনেস–সচেতন এই তারকা ‘কালপুরুষ’–এ চরিত্র হয়ে ওঠার জন্য ওজন বাড়াতে গিয়ে খাবারের ধরন ও জীবনাচারণেও বদল আনতে হয়েছে বলে জানান তিনি।

নাঈম বলেন, ‘খাবারের তালিকা শুরুর আগে ঠিক করতে হয়েছে। এমন চর্বিজাতীয় খাবার খাওয়া যাবে না, যাতে এটা পরে রিডিউস করা না যায়। আমি তখন সবজি, সাদা ভাত, মাছ, ডিম—এগুলোই বেশি খেতাম। শুরুর দিকে তিন বেলা খেতাম, এরপর আস্তে আস্তে বাড়িয়েছি। কোনো দিন চার বেলা, আবার কোনো কোনো দিন ৫ বেলাও খেয়েছি। শুটিংয়ের ২০-২৫ দিন আগে আমার ওজন গিয়ে দাঁড়ায় ১১০ কেজির বেশি। কিন্তু আমার মুখ ফোলে নাই তখনো। তখন আমরা আবার কার্বোহাইড্রেট–জাতীয় খাবার বাড়িয়েছি। ভাতের কার্বোহাইড্রেট কমানো সম্ভব। আমরা যদি দেখি, বাংলাদেশের কৃষক যোদ্ধারা যে অনেক ভাত খায়, কিন্তু তারা মোটা হয় না, পেটানো শরীর থাকে। কারণ, সে পরিমাণে পরিশ্রমও করে তারা, তাই তা কমে যায়। তাই আমরা ভাতের কার্বোহাইড্রেট বাড়িয়েছি, যাতে এটা পরে কমানো যায়।’

Related articles

Recent articles

spot_img