20.5 C
New York

‘কোড সামুরাই’ হ্যাকাথনের দ্বিতীয় পর্বের ফল প্রকাশ

Published:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ (সিএসই) এবং বাংলাদেশ জাপান ইনফরমেশন টেকনোলজি লিমিটেডের (বিজেআইটি) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত কোড সামুরাই-২০২৪ হ্যাকাথনের দ্বিতীয় পর্বের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে ৯১ টি দল থেকে ৪৬টি দল নির্বাচিত হয়েছে। তারা চূড়ান্ত পর্বের প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে সিএসই বিভাগের অডিটোরিয়ামে কোড সামুরাই-২০২৪ এর আহবায়ক ও বিভাগের অধ্যাপক ড. উপমা কবির আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল প্রকাশ করেন। এ সময় আয়োজক কমিটির অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কোড সামুরাই-২৪ হ্যাকাথনের চূড়ান্ত পর্বে চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য তিন লাখ টাকার নগদ অর্থ পুরস্কারসহ বিজয়ী দলগুলোর জন্য মোট দশ লাখ টাকার পুরস্কার রয়েছে। একইসঙ্গে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর জন্য জাপানিজ আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে ইন্টার্নশিপের সুযোগ রয়েছে।

ফলাফল উপস্থাপনকালে অধ্যাপক ড. উপমা কবির বলেন, সারাদেশের ৭৬টি বিশ্ববিদ্যালয় হতে মোট ৪০৭টি দল কোড সামুরাই-২০২৪ হ্যাকাথনে অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছিল। এরমধ্যে ধারাবাহিক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রথম পর্বে মোট ৯১টি দল নির্বাচিত হয়। এখন দ্বিতীয় পর্বে ৪৬ টি দল নির্বাচিত হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নির্বাচিত ৪৬টি দল আগামী ৩ ও ৪ মে বুটক্যাম্পে অংশগ্রহণের পর আগামী ১০-১১ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে দু’দিনব্যাপী চূড়ান্ত পর্বের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে। এ সময় চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক দলকে একটি বাস্তবধর্মী সমস্যার পূর্ণাঙ্গ ও সফটওয়‍্যারভিত্তিক কারিগরী সমাধান প্রস্তুত করতে হবে।

এবারের আয়োজনে ইন্ডাস্ট্রির চাহিদানুযায়ী সফটওয়্যারের বাস্তব সমাধানে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে অধ্যাপক ড. উপমা কবির বলেন, আমাদের ইন্ডাস্ট্রির অভিযোগ থাকে, গ্র্যাজুয়েটরা ভালো পড়াশোনা করে যায়, তবে ইন্ডাস্ট্রি যে ধরনের সফটওয়্যার সল্যুশন চায় তার সঙ্গে তাদের একটি দূরত্ব থেকে যায়। এজন্য গত দুইবার থেকে এবারের আয়োজন সম্পূর্ণ ভিন্ন। এবার আমরা একেবারে ইন্ডাস্ট্রিতে যেভাবে সল্যুশন দেওয়া হয়, ঠিক সেইরকম একটি সফটওয়্যারভিত্তিক বাস্তব সমস্যার সমাধান দেওয়ার চিন্তা করছি।

তিনি বলেন, আমাদের মূল উদ্দেশ্য ইন্ডাস্ট্রিতে যখন একটি সমাধান দেওয়ার প্রয়োজন পড়বে। আমাদের শিক্ষার্থীরা সে ধরনের সমাধান দেওয়ার জন্য কতটা উপযোগী, তারা প্রস্তুত কি না সেটি দেখা; একটা পূর্ণাঙ্গ সফটওয়্যার তৈরির যত কম্পোনেন্ট থাকে সেগুলোকে তারা এড্রেস করতে পারে কিনা সেটা দেখা হবে। এতে করে শিক্ষার্থীরা ইন্ডাস্ট্রির জন্য উপযোগী হয়ে উঠবেন।

কোড সামুরাই একটি সফটওয়্যার-সমস্যার সমাধানভিত্তিক প্রতিযোগিতা, যেখানে অংশগ্রহণকারীরা যে কোনো সমস্যার সফটওয়্যারভিত্তিক সমাধান বের করেন। গত দুই বছর ধরে সিএসই বিভাগ ও বিজেআইটি এ আয়োজন করে আসছে।

হাসান আলী/এমএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img