10.2 C
New York

কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তার কি মোদিবিরোধী জোটকে শক্তিশালী করবে

Published:

দুর্নীতির অভিযোগে কেজরিওয়ালকে দেশটির অর্থনৈতিক অপরাধবিষয়ক এজেন্সি গ্রেপ্তারের পর গত শুক্রবার আদালত তাঁকে রিমান্ডে পাঠাতে বলেছেন।

বলা হচ্ছে, ইলেকটোরাল বন্ড নিয়ে যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে, তা থেকে দৃষ্টি সরাতেও মোদি সরকার এ কাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। ভারতের শীর্ষ আদালত সম্প্রতি ইলেকটোরাল বন্ড–সম্পর্কিত তথ্য প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছেন। এ বন্ড থেকে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। (উল্লেখ্য, মোদি সরকার এই বন্ডের উদ্ভাবক। এ ব্যবস্থায় ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বন্ড কিনে নামপরিচয় গোপন রেখে রাজনৈতিক দলগুলোকে দান করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে)।

শুক্রবার বিকেলে কেজরিওয়ালকে দিল্লির আদালতে তোলা হয়।

কেজরিওয়ালকে গ্রেপ্তারের পর তাঁর আইনজীবী শাদান ফারাসাত এএফপি নিউজ এজেন্সিকে বলেন, ‘আমরা আমাদের পরবর্তী কার্যক্রম কী হবে, তা ভাবছি।’

এদিকে রাজধানীতে আম আদমি পার্টির আরও কয়েক ডজন কর্মীকে আটক করা হয়। জাতীয় নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ আগে এই ধরপাকড়ের বিরুদ্ধে ভারতের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ হয়েছে। এএপির নেতারা বলেছেন, তাঁরা আন্দোলন–সংগ্রাম চালিয়ে যাবেন। এর মধ্যে একটি বিক্ষোভ সমাবেশ নরেন্দ্র মোদির বাসভবনের বাইরে হওয়ার কথা রয়েছে।

এএপি নেতা ও দিল্লির অর্থমন্ত্রী অতিশি সিং এক বিবৃতিতে বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনের প্রচারণা থেকে দূরে রাখতেই কেজরিওয়ালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভোট চুরির কায়দা এটা।’

Related articles

Recent articles

spot_img