23.4 C
New York

কালুরঘাটের এপ্রোচ সড়ক নির্মাণে অনিয়ম অনুসন্ধানে দুদক

Published:

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর কালুরঘাট সেতু সংলগ্ন ফেরি পারাপারের এপ্রোচ সড়ক নির্মাণে অনিয়ম অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে সোমবার দুপুরে নদীর দুই প্রান্তের (পূর্ব ও পশ্চিম প্রান্ত) ফেরি পারাপারের মাধ্যমে যানবাহন চলাচলের জন্য নির্মিত এপ্রোচ সড়কের ভৌত কাজ মেপে দেখে দুদকের অনুসন্ধানকারী টিম। অভিযোগটি অনুসন্ধান করছেন দুদক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এর সহকারী পরিচালক এমরান হোসেন।

এর আগে সোমবার নির্ধারিত সময়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকার জন্য সড়ক ও জনপথ (সওজ) চট্টগ্রাম বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. নেজাম উদ্দিন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু মো. ভুট্টু, ঠিকাদার আবেদ মনসুর কন্সট্রাকশনসের সত্ত্বাধিকারী মো. আবেদ মনসুর, মেসার্স এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরার সত্ত্বাধিকারী এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরাকে চিঠি দেয় অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা।

অন্যদিকে প্রকল্পর নির্মাণকৃত ভৌত কাজ পরিমাণের জন্য এলজিইডি’র বোয়ালখালী উপজেলা প্রকৌশলী রেজাউল করিম এবং হাটহাজারী উপজেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী আ স ম রাশেদুল আহসানকে চিঠি দেন অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা। বাস্তবায়িত প্রকল্পের কাজের পরিমাপ গ্রহণ করে এর ব্যয় নিরূপণ করে জরুরি ভিত্তিতে মূল্যায়ন প্রতিবেদন জমা দেওয়ার অনুরোধ করা হয় দুই প্রকৌশলীকে।

সোমবার সকালে নির্ধারিত সময়ে পরিমাপের জন্য দুই প্রকৌশলী, প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। এসময় অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা এমরান হোসেনের নেতৃত্বে দুদকের একটি টিম কাজ পরিমাপের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে দুদক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এর সহকারী পরিচালক এমরান হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, কালুরঘাটে ফেরি পারাপারের এপ্রোচ সড়ক নির্মাণে অনিয়মের বিষয়ে একটি অভিযোগ দুদক প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশে অনুসন্ধান চলমান রয়েছে। অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে প্রকল্পের ভৌতকাজ শিডিউল অনুযায়ী করা হয়েছে কি না তা পরিমাণ করতে এলজিইডির দুজন প্রকৌশলীকে আনা হয়েছে। তারা সরেজমিন পরিমাণ করে কাজের ব্যয় মূল্যায়ন করে প্রতিবেদন দেবেন। প্রতিবেদন পেলে বুঝা যাবে কাজটিতে আর্থিক অনিয়ম হয়েছে কি না।

এমডিআইএইচ/জেডএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img