11.2 C
New York

উন্নয়নে অর্থ নয় সমন্বয় সংকট থাকতে পারে: গণপূর্ত মন্ত্রী

Published:

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন উন্নয়নে অর্থ নয় সমন্বয় সংকটে ভূগছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও সরকারি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানসমূহ। পরিকল্পিত কক্সবাজার বিনির্মাণে সমন্বয়ে এগুনোর বিকল্প নেই। গুছিয়ে কাজ করতে হলে, সমস্যা চিহ্নিত করা জরুরি।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) দুপুরে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক), জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ, গণপূর্ত জোন, কক্সবাজার নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যে বিশাল চিন্তাভাবনা নিয়ে সামনে এগুচ্ছে সেটিকে আমরা এপ্রিসিয়েট করি। এ উদ্যোগ সময়োযোগী। গণপূর্ত বিভাগও বেশকিছু প্রকল্প চলমান রেখেছে, যা সুচারুরূপে বাস্তবায়ন করছে বলে প্রতিয়মান হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, কক্সবাজার যাতে ভবিষ্যতে সুন্দর ও বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ পর্যটন নগরী হিসেবে পরিচিতি নিশ্চিত করতে পারে তার জন্য আমরা পরিকল্পিত উন্নয়নে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। তা নিশ্চিত করতে সরকারের অন্য বিভাগ যেমন, পর্যটন, বন ও পরিবেশ এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সকলের সঙ্গে সম্মিলিতভাবে কক্সবাজারকে একটা উন্নত, সমৃদ্ধ অঞ্চল তথা পর্যটকদের আকর্ষণীয় বিশ্বমানের স্থান হিসেবে গড়ে তুলতে আপ্রাণ চেষ্টা করা হবে।

কউকের প্রতিষ্ঠিত অনেক প্রকল্প অবহেলায় পড়ে সৌন্দর্য্য হারাচ্ছে- এমন প্রশ্নের জবাবে পূর্তমন্ত্রী বলেন, কউকের সঙ্গে অন্য এজেন্সির সমন্বয়ের অভাব থাকতে পারে। পর্যটন নগরীর সৌন্দর্য বর্ধনে সম্পাদন হওয়া প্রকল্পগুলোর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ নিশ্চিতে কউকসহ সকলকে সচেতন হতে হবে।

এর আগে কউকের সম্মেলন কক্ষে কউক চেয়ারম্যান কমডোর মোহাম্মদ নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন এজেন্সি তাদের চলমান কাজগুলো মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরে তুলে ধরেন। গণপূর্ত বিভাগের উদ্যোগে কক্সবাজারে নির্মাণাধীন মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স, কউকের ফ্ল্যাট প্রকল্পসহ চলমান এবং ভবিষ্যৎ একাধিক প্রকল্প সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়।

উন্নয়নে অর্থ নয় সমন্বয় সংকট থাকতে পারে: গণপূর্ত মন্ত্রী

এসময় চট্টগ্রাম বন্দর এলাকার সংসদ সদস্য এমএ লতিফ, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব নবীরুল ইসলাম, কউক সচিব আবুল হাসেম, গণপূর্তের কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ শাহজাহান, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আরিফুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, সংসদ সদস্য, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, কক্সবাজার পৌর কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে পৃথক বৈঠক করেছেন মন্ত্রী।

শুক্রবার (২২ মার্চ) সকালে মন্ত্রী মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে চলমান নানা প্রকল্প পরিদর্শনে যাবেন বলে জানা গেছে।

সায়ীদ আলমগীর/এনআইবি/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।

Related articles

Recent articles

spot_img