10.9 C
New York

ইতালিতে ধর্ষণের দায়ে ব্রাজিলে জেল খাটতে হবে রবিনিওকে

Published:

২০১৩ সালে ইতালিতে এক নারীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ব্রাজিলের সাবেক ফরোয়ার্ড রবিনিওকে নিজ দেশেই সাজা খাটতে হবে। গতকাল ব্রাজিলের রাজধানী ব্রাসিলিয়ার আদালত এই রায় দিয়েছেন। তাঁকে কোন দেশে সাজা খাটতে হবে, এ নিয়ে ভোটাভুটি হয়েছে। ৯টি ভোট পড়েছে ইতালিয়ান আদালতের শাস্তি দাবির পক্ষে, ২টি ভোট পড়েছে রবিনিওর পক্ষে।

আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, অবিলম্বে রবিনিওর সাজার মেয়াদ শুরু করতে হবে। ৪০ বছর বয়সী রবিনিও কাল রায় ঘোষণার দিন আদালতে যাননি। রবিনিওর পক্ষে আদালতে উপস্থিত ছিলেন তাঁর আইনজীবী জোসে আল্‌কমিন। সাংবাদিকদের আল্‌কমিন জানিয়েছেন, তাঁরা এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন এবং তিনি তাঁর মক্কেলকে (রবিনিওর) জেলের বাইরে রাখার সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন।

ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৭ সালে রবিনিওকে ৯ বছরের কারাদণ্ড দেন ইতালির আদালত। তবে রবিনিও তার আগেই ইতালি ছেড়ে গেলেও ২০২০ সালে মিলানের আদলতে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। আপিলে তিনি হেরে যান। এরপর ২০২২ সালে ইতালির সর্বোচ্চ আদালত তাঁর শাস্তি বহাল রাখেন এবং একই সঙ্গে ব্রাজিল সরকারকে তা কার্যকর করার অনুরোধ জানান। ব্রাজিলের সুপিরিয়র কোর্ট অব জাস্টিস (এসটিজে) এর আগে জানিয়েছিলেন, তাঁরা রবিনিওকে শাস্তি দেওয়ার বিষয়টি পর্যালোচনা করে দেখবেন।

ইতালির আইনজীবীরা রবিনিওর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি করেন। কিন্তু বিদেশে অপরাধ সংঘটনের পর ব্রাজিলের কোনো নাগরিক তাঁর দেশে ফিরলে বিদেশের বিচারিক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করে না দেশটির সরকার। তাই ইতালির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, রবিনিওর শাস্তি যেন ব্রাজিলেই কার্যকর করা হয়। সেটারই চূড়ান্ত রায় এল অবশেষে।

ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলানে খেলাকালীন ২০১৩ সালে মিলানের এক নৈশ ক্লাবে আলবেনিয়ান এক নারীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে রবিনিওর বিরুদ্ধে। সেই নারী নিজের ২৩তম জন্মদিন উদ্‌যাপন করতে ওই নৈশ ক্লাবে গিয়েছিলেন।

যদিও রবিনিও শুরু থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে এসেছেন। সম্প্রতি ব্রাজিলের টেলিভিশন নেটওয়ার্ক টিভি রেকর্ডকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ৪০ বছর বয়সী সাবেক ফুটবলার জানিয়েছেন, ওই নারীর সঙ্গে সবকিছু পারস্পরিক সম্মতিতেই হয়েছিল। এ ছাড়া তিনি ইতালির বিচারিক ব্যবস্থাকে ‘বর্ণবাদী’ আখ্যা দিয়েছেন।

প্রায় একই সময়ে ব্রাজিলের গ্লোবো স্পোর্টসও রবিনিওর একটি উদ্ধৃতি প্রকাশ করেছে। সেখানে তিনি বলেছেন, ‘আমি হাসছি; কারণ, আমি বিষয়টিকে পাত্তা দিচ্ছি না। ওই নারী (সে রাতে) পুরোপুরি মাতাল ছিল। এমনকি তার সঙ্গে কী হয়েছিল, সেটাও জানে না।’

ব্রাজিলের হয়ে ১০০ ম্যাচে ২৮ গোল করেছেন রবিনিও। খেলেছেন রিয়াল মাদ্রিদ, এসি মিলান ও ম্যানচেস্টার সিটির মতো ক্লাবে। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে ঝলক দেখানোয় তাঁকে ভবিষ্যতের বড় তারকা ভাবা হতো। কিন্তু রবিনিও নিজের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। ২০২০ সালে শৈশবের ক্লাব সান্তোসে ফিরলেও তাঁকে মাঠেই নামতে দেওয়া হয়নি। ধর্ষণের অভিযোগ থাকায় ফুটবলের সমর্থক, পৃষ্ঠপোষক ও সংবাদমাধ্যমের চাপে সান্তোস তাঁর সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে।

Related articles

Recent articles

spot_img