5.6 C
New York

অনেক চাকরির জন্যই আসলে চার বছরের ডিগ্রি লাগে না

Published:

পরদিন অফিসে গিয়ে যখন বললাম, আমি রাজি আছি; বস আমার দিকে তাকিয়ে বলেছিলেন, ‘এ রকমটা আর কোনো দিন কোরো না।’ এ ঘটনা আমার জীবনে একটা বড় শিক্ষা। আর সেই শিক্ষা হলো, উন্নতি আর স্বস্তি কখনো একসঙ্গে থাকে না। কারণ, বড় হতে হলে ঝুঁকি নিতে হয়। আর ঝুঁকি সব সময় তোমাকে অস্বস্তির মধ্যে ফেলবে। কিন্তু এই অস্বস্তিটা দরকার। এই অস্বস্তির মানে হলো, তুমি কিছু শিখতে যাচ্ছ। আমি বলব, ঝুঁকির উল্টো পিঠে উন্নতিটাও দেখো। প্রশ্ন করো। কৌতূহলী হও। যত পারো শেখো। বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিদিন শেখার যে অভ্যাস গড়ে তুলেছ, সেই অভ্যাস এখানে ফেলে যেয়ো না; বরং সঙ্গে নিয়ো।

শেষ গল্প

২০১২ সালে যখন প্রথম আইবিএমের প্রধান নির্বাহী হলাম, তখন প্রযুক্তি খাতে বড় বড় পরিবর্তন আসছিল। এখন হয়তো তোমাদের কাছে এসব প্রযুক্তির অনেক কিছুই খুব সাধারণ মনে হয়, কিন্তু তখন সেগুলোই ছিল বড় ব্যাপার। যেমন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ক্লাউড ও সাইবার সিকিউরিটি। তো এই নতুন নতুন পরিবর্তনের জন্য আমাদের প্রচুর নতুন লোক দরকার ছিল। কিন্তু আমরা কোনো লোক পাচ্ছিলাম না। দেখা গেল, যোগ্য লোকের অভাবে শত শত পদ খালি পড়ে আছে। অনেকে বলছিল, যোগ্য চাকরিপ্রার্থীই নেই, আমরা চাকরি দেব কাকে! অথচ সেই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারের হার ছিল অনেক বেশি। সংখ্যাটা প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ। যাদের মধ্যে একটা বড় অংশই নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের। খুব অবাক হয়ে ভাবছিলাম, এটি কীভাবে সম্ভব? এতগুলো চাকরির সুযোগ খুলে বসে আছি, অথচ নেওয়ার কেউ নেই!

আমি গভীরভাবে ব্যাপারটা বিশ্লেষণ করতে শুরু করলাম। দুঃখজনকভাবে সে সময় আমার বিশ্লেষণ থেকে যা পেয়েছিলাম, তা আজও অনেকখানি সত্য। প্রথমত, আইবিএমের মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো কেন যেন প্রথাগত চার বছরের ডিগ্রিধারীদের মধ্যেই চাকরিপ্রার্থী খোঁজে। প্রতিটি চাকরির জন্যই তারা স্নাতক, নয়তো পিএইচডি ডিগ্রি চায়। দ্বিতীয়ত, অনেক চাকরির জন্যই আসলে চার বছরের ডিগ্রি লাগে না। তৃতীয়ত, ৬৫ শতাংশ মানুষের বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রিই নেই। আমি যেই উপাত্তটা দিলাম, এটা যুক্তরাষ্ট্রের। কিন্তু অধিকাংশ উন্নত দেশের ক্ষেত্রেই এটি সত্য। এটি খুবই দুঃখজনক যে বিশাল একটা কর্মশক্তি আমরা কোনো কাজে লাগাতে পারছি না, শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি নেই বলে।

তখন থেকে আমরা আইবিএমে একটা বড় পরিবর্তন আনি। কলেজ, কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও প্রশিক্ষণকেন্দ্রগুলো থেকে চাকরিপ্রার্থী খুঁজতে শুরু করি। চাকরি দেওয়ার সময় আমরা শুধু যোগ্যতা আর দক্ষতাই দেখতাম, ডিগ্রি নয়। এর মাধ্যমে দারুণ ফলও পেয়েছি। দারুণ মেধাবী সব মানুষ আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। আমাদের কর্মশক্তিতে বৈচিত্র্য যোগ হয়েছে। তাই তোমাদের প্রতি অনুরোধ, সব সময় যোগ্যতা আর দক্ষতা দিয়েই মানুষকে বিচার কোরো। অন্যের জন্য সুযোগ তৈরি করে দিয়ো।

ইংরেজি থেকে অনুদিত

Related articles

Recent articles

spot_img